মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

অন্যান্য

নিয়মিত টিকাদান সময়সূচীঃ

০-১১ মাস এবং ১৫ মাস বয়সের শিশুদের টিকাদান সময়সূচি

রোগের নাম

টিকার নাম

টিকার ডোজ

ডোজের সংখ্যা

ডোজের মধ্যে বিরতি

টিকা শুরু করার সঠিক সময়

টিকাদানের স্থান

টিকার প্রয়োগ পথ

যক্ষা

বিসিজি

০.০৫ এম এল

-

জন্মের পর থেকে

বাম বাহুর উপরের অংশে

চামড়ার মধ্যে

ডিফথেরিয়া, হুপিংকাশি, ধনুষ্টাংকার, হেপাটাইটিস-বি, হিমোফাইলাস, ইনফ্লুয়েঞ্জা-বি

পেন্টাভ্যালেন্ট ভ্যাকসিন ডিপিটি হেপাটাইটিস- বি, হিব

০.৫ এম এল

৪ সপ্তাহ

৬ সপ্তাহ

উরুর মধ্যভাগের বহিরাংশে (১ম- বাম, ২য়- ডান, ৩য়-বাম উরুতে)

মাংপেশী

নিউমোকক্কাল জনিত নিউমোনিয়া

পিসিভি ভ্যাকসিন

০.৫ এম এল

সপ্তাহ

৬ সপ্তাহ

উরুর মধ্যভাগের বহিরাংশে (১ম-ডান, ২য়-বাম, ৩য়-ডান উরুতে)

মাংসপেশী

পোলিও

মাইলাইটিস

ওপিভি

২ ফোঁটা

৪*

৪ সপ্তাহ

৬ সপ্তাহ

মুখে

মুখে

হাম ও রুবেলা

এমআর টিকা

০.৫ এম এল

-

৯ মাস বয়স পূর্ণ হলে

উরুর মধ্যভাগের বহিরাংশে (ডান উরুতে)

চামড়ার নিচে

হাম

হামের টিকা

০.৫ এম এল

-

১৫ মাস বয়স পূর্ণ হলে

উরুর মধ্যভাগের বহিরাংশে (বাম উরুতে)

চামড়ার নিচে

 

 

 

*          ওপিভি টিকা মোট ৪ (চার) ডোজ দিতে হবে। ৪র্থ ডোজটি এমআর টিকার সাথে দিতেহবে। এছাড়া ও জন্মের ১৪  দিনের মধ্যে ওপিভির অতিরিক্ত ডোজ দেয়া যেতে পারে।

 

এই নিয়ম মেনে টিকা না দিলে টিকা অকার্যকর হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।

 

 

১৫ বছর বয়সী কিশোরী ও ১৫-৪৯ বছর বয়সের মহিলাদের টিকাদান সময়সূচি

রোগের নাম

টিকার নাম

টিকার ডোজ

ডোজের সংখ্যা

টিকা শুরু করার সঠিক সময়

টিকাদানের স্থান

টিকার প্রয়োগ পথ

 

হাম, রুবেলা

 

এমআর

 

০.০৫ এম এল

 

১৫ বছর বয়সী কিশোরী ১ম ডোজ টিটি টিকা পাওয়ার সময়

বাহুর উপরের অংশে

চামড়ার মধ্যে

 

 

 

ধনুষ্টাংকার

 

 

টিটি

(টিটেনাস টক্সয়েড)

 

 

০.৫ এম এল

 

 

 

টিটি-১: ১৫ বছর বয়সে

টিটি-২: টিটি-১ পাওয়ার কমপক্ষে ২৮ দিন পর

টিটি-৩: টিটি-২ পাওয়ার কমপক্ষে ৬ মাস পর

টিটি-৪: টিটি-৩ পাওয়ার কমপক্ষে ১ বৎসর পর

টিটি-৫: টিটি-৪ পাওয়ার কমপক্ষে ১ বৎসর পর

 

বাহুর উপরের অংশে

মাংপেশী

 

 

 

*          ১৫ বছর বয়সী সকল কিশোরীদের ১ ডোজ এমআর টিকা টিটি-১ টিকা নেয়ার সময় দিতে হবে।

 

*          যত দেরি করেই পরবর্তী নির্ধারিত টিকা নিতে আসুক না কেন তাকে ৫ ডোজ টিটিটিকার সময়সূচি অনুযায়ী প্রাপ্য পরবর্তী ডোজটি দিতে হবে।

 

টিকা প্রদানের জন্য অনুসরনীয়

১.         উদ্দিষ্ট শিশু, কিশোরী ও মহিলাদের সবগুলো টিকা সময়সূচি অনুযায়ী শেষ করতে হবে।

 

২.         সর্বনিম্ন বিরতির আগে টিকা দিলে তা কার্যকরী হবে না এবং এই ডোজটি বাতিল বলে গন্য হবে।

 

৩.         পোলিও, পেন্টালেন্ট, পিসিভি ও টিটি টিকার ডোজের বিরতির কোনো সর্বোচ্চ সীমানেই। দু’টি ডোজের মধ্যে        সময় যদি ১২ মাসের ও বেশি হয় তবুও আবারপ্রথম থেকে টিকা দেয়া শুরু করা যাবে না। নূন্যতম বিরতি পর             হলেইপরবর্তি ডোজ টিকা দিতে হবে। অর্থাৎ প্রথম ডোজ দেয়ার ২৮ দিনের পরিবর্তে ২/৩মাসের পরে শিশু /           মহিলা আসলেও তাকে দ্বিতীয় ডোজ দিতে হবে।

 

৪.         কোনো টিকার ডোজ অনুমান করে বা নিশ্চিত না হয়ে দেয়া যাবে না।